Bet365 বাংলা (বাংলাদেশ)

আপনি যদি ক্রিকেট বা ফুটবল খেলার ভক্ত হন,তবে ধরে নেয়া যায় টেলিভিশনে বিভিন্ন টুর্নামেন্ট অবশ্যই দেখেন। অ্যাশেজসহ বিভিন্ন নামকরা টুর্নামেন্টে বেট৩৬৫ অনলাইন বেটিং সাইটের বিজ্ঞাপন অবশ্যই দেখেছেন। বিজ্ঞাপনে বেট৩৬৫ এর দাবি, বিশ্বের জনপ্রিয় স্পোর্টস বেটিং কোম্পানি তারা।তাদের দাবি নিয়ে আমি কিছু বলবো না। তবে এটা বলতে পারি,অবশ্যই আমার পছন্দের গ্যাম্বলিং সাইটের তালিকায় শীর্ষে বেট৩৬৫।আমি আর আমার বন্ধুরা সাইটটিতে প্রচুর সময় ব্যয় করি। আমার হিসেবে অনলাইনে থাকা গ্যাম্বলিং সাইটগুলোর মধ্যে অন্যতম সেরা এই বেট৩৬৫।

আমি বলছি না বেট৩৬৫ এর সবকিছুই ভালো। সাইটটির অনেক কিছুই আছে যা আমার পছন্দ নয়, কিংবা আরও উন্নতির প্রয়োজন আছে। তবে, গত কয়েক বছর ধরে আমি কয়কশো গ্ল্যাম্বিং সাইট ব্যবহার করেছি।খুব কম সাইটই আছে যা বেট৩৬৫ এর মতো স্বাভাবিকভাবে বাজির খেলা চালিয়ে যাচ্ছে। একযুগের বেশি সময় এই সাইটটি ব্যবহার করছি। এর পেছনে রয়েছে প্রচুর ভালো অভিজ্ঞতা আর ভালো লাগা। বিশ্বব্যাপী কয়েক কোটি মানুষের কাছে কেন এটি এতো জনপ্রিয়, তা বুঝতে আমার কষ্ট হয়না।

বেট৩৬৫ নিজেদের অনলাইন স্পোর্টস বেটিং সাইট দাবি করলেও, এখানে আপনি খেলাধুলার ওপর বাজি ধরা ছাড়াও আরও অনেক কিছুই করতে পারবেন। যেমনঃ

  • স্পোর্টস বেটিং
  • হর্স রেসিং বেটিং
  • ই-স্পোর্টস বেটিং
  • ক্যাসিনো
  • পোকার
  • বিংগো

ব্যক্তিগতভাবে আমি স্পোর্টস ও হর্স রেসিং এ বাজি ধরা পছন্দ করি। এই দুইটি বাজির জন্য সেরা জায়গা বেট৩৬৫। মাঝে মাঝে ই-স্পোর্টসেও বাজি ধরি আমি। ক্যাসিনো এবং পোকারও খেলি নিয়মিত। বিংগো আমার সাথে যায় না। তাই বিষয়টি নিয়ে না বলি।

আজকের লেখায় আমি বেট৩৬৫ তে আমার অভিজ্ঞতার কথা লিখবো। আশা করি লেখাটি পড়ার পর সাইটটি আপনার জন্য উপযুক্ত কিনা সে সিদ্ধান্ত নিতে বেশি কষ্ট হবে না আপনার। আমি আমার জানা সবকিছু আপনাদের জানানোর চেষ্টা করবো। থাকবে ভালো মন্দ সবই।

Bet365 বাংলাদেশ: কোম্পানি পরিচয়

সম্ভবত অনলাইন দুনিয়ার সবচেয়ে বড় জুয়া এবং ক্যাসিনো কোম্পানি বেট৩৬৫। এখানে কাজ করে প্রায় পাঁচ হাজার কর্মকর্তা কর্মচারী। সাড়ে চার কোটির বেশি মানুষ বেট৩৬৫ ব্যবহার করে।যুক্তরাজ্যের স্টক-অন-টেন্ট শহরে ২০০০ সালে কোম্পানিটি প্রতিষ্ঠা করেন ডেনিস কোটস। ২০ বছর পরে এসে সেই প্রতিষ্ঠানের সম্পদ এখন প্রায় তিন বিলিয়ন। ফুটবল ক্লাব থেকে শুরু করে স্টেডিয়াম পর্যন্ত আছে তাদের। অফিস ছড়িয়ে পড়েছে ম্যানচেস্টার, জিব্রাল্টার, মাল্টা, বুলগেরিয়া, থেকে অস্ট্রেলিয়া পর্যন্ত।

বেট৩৬৫ কি স্ক্যাম?

এটা নিঃসন্দেহে বলা যায়, বেট৩৬৫ স্ক্যাম নয়।এটি বিশাল একটি অনলাইন সাইট, যা প্রতি বছর বিলিয়ন ডলারের বেশি আয় করছে।তাই প্রতিষ্ঠানটির এর সদস্যদের সাথে প্রতারণা করার কোন প্রয়োজন নেই। বিশ্বের বিখ্যাত সব টিভি চ্যানেলে নিয়মিত বিজ্ঞাপণ প্রচার করে সাইটটি। এমনকি নামকরা সব টুর্নামেন্টেও থাকে তাদের বিজ্ঞাপণ। eCogra এর পরীক্ষায় এর  নিরাপত্তা ও নিরপেক্ষতা প্রমাণিত। সাইটটির পেমেন্ট ব্যবস্থাও আন্তর্জাতিক মানের।

বেট৩৬৫ এর অফারসমূহ

বেট৩৬৫ এর অফারের শেষ নেই! স্পোর্টস তাদের সবচেয়ে বড় বাজারের জায়গা। তবে ক্যাসিনো, বিংগো এবং পোকারেও তাদের জুড়ি মেলা দায়। লক্ষাধিক খেলাতে বাজি ধরতে পারবেন এখানে।

অনলাইন ক্যাসিনো

বিশ্বের অধিকাংশ অনলাইন ক্যাসিনোতেই বেট৩৬৫ অনালাইনের লাইভ ক্যাসিনো ও তাদের স্লট ব্যবহার করা হয়। তবে বেট৩৬৫ সাইটে এর বেশ কিছু আলাদা সেকশন আছে। অসংখ্য ধরণের গেম থাকায় ব্যবহারকারী সহজেই নিজের পছন্দমতো ক্যাসিনো খেলতে পারেন। বাস্তবিকই এখানে হাজার হাজার গেম আছে। এসব গেম সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে নেটএন্ট, মাইক্রোগেমিং, অ্যাশ গেমিং, এবং ব্লুপ্রিন্ট গেমিং রয়েছে।

স্টারবার্স্ট, গনজোস কুয়েস্ট, এবং কোই প্রিন্সেসের মতো জনপ্রিয় গেমস আছে এখানে। বিশ্বে পরিচিত ও জনপ্রিয় যেকোন স্লট বা টেবিল গেম পাবেন সাইটটিতে। জুরাসিক পার্ক, হাল্ক, এবং আইরন ম্যান সিরিজের মতো বিখ্যাত সব সিনেমা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে বানানো স্লট পাবেন বেট৩৬৫ তে। ব্লাক জ্যাক, বাক্কারাতের মতো ক্লাসিক টেবিল গেমসও আছে। পাশাপাশি প্লেটেকের লাইভ ক্যাসিনো গেমগুলো আপনাকে দেবে ভিন্ন জগতের স্বাদ।

স্পোর্টস বেটিং

বেট৩৬৫ এর মূল আইটেম স্পোর্টস বেটিং। সাইটটির আয়ের ৮০ ভাগই আসে এই সেক্টর থেকে। আপনি কল্পনা করতে পারেন, এমন সব খেলার ওপরই বাজি ধরতে পারবেন এখানে। লাইভ বেটিংয়ে টাকা বাজি ধরে, বেটিং শেষ হওয়ার আগেই টাকা উঠিয়ে নেয়ার সুযোগ একমাত্র বেট৩৬৫ ই দেয়! এমনকি আংশিক টাকা উঠিয়ে নেয়ার ব্যবস্থাও আছে।

পোকার

অন্যান্য সাইটে পোকার খেলায় অফার দেখা যায় না বললেই চলে। তবে বেট ৩৬৫তে অসংখ্য অফার। বিখ্যাত আইপোকারের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে বিশাল প্লেয়ার পুল নিশ্চিত করে তারা। অংশগ্রহণকারীরা ডেস্কটপ ও মোবাইলে ডাউনলোড করেও পোকার খেলতে পারেন। টেক্সাসের হোল্ড’এম, টুইস্টার এবং স্পিড পোকারের মতো বিভিন্ন ধরণের পোকার খেলার ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। দিনরাত ২৪ ঘন্টা, সপ্তাহে সাতদিন চলে পোকার। আর নিয়মিতই যোগ হয় নতুন নতুন গেম।

বিংগো

শুনতে অবাক লাগলেও, বাজির দুনিয়ার সবই পাবেন বেট৩৬৫ তে। রয়েছে হরেক রকমের বিংগোর সমাহার। এখানে প্লেটেকের বিংগো সফটওয়্যার ব্যবহার হয়। ফলে খেলোয়াড়েরা পান সেরা মানের গেমের অভিজ্ঞতা। এখানে ৯০, ৮০ ও ৭৫ বলের বিংগোর পাশাপাশি ডিল ওর নো ডিল বিংগো, ক্যাশ কিউব, রেইনবো রিসেস বিংগো এবং বাউন্সি বলস বিংগো খেলার ব্যবস্থা রয়েছে। আর অংশগ্রহণকারীদের জন্য রয়েছে নানা অফার।

ডিপোজিট এবং পে আউট

নিরাপদ ডিপোজিটের নানা অপশন রয়েছে বেট৩৬৫ তে। ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডের পাশাপাশি ভিসা, মাস্টারকার্ড এবং মায়েস্ট্রো, অ্যাপল পে, পেপাল, গুগল পে, পেসেফকার্ড, স্ক্রিল, স্ক্রিল ওয়ান-ট্যাপ, পে বাই ব্যাংক অ্যাপ, নেটেলার, এন্ট্রো পে, এবং ফাস্ট ব্যাংক ট্রান্সফার। এমনকি ব্যাংক চেকও ব্যবহার করা যেতে পারে! সাইটটিতে সর্বনিম্ন ৫ ব্রিটিশ পাউন্ড ডিপোজিট করা যায়। যদিও পেপাল নেটলার ও এন্ট্রোপের মতো সার্ভিসগুলোতে ১০ ব্রিটিশ পাউন্ডের কম ডিপোজিট করা যায় না। একই কথা ব্যাংক ওয়ার ও চেকের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। যদিও ডিপোজিট করতে কোন চার্জ প্রয়োজন হয় না।

 

ডিপোজিট অপশনভিসা, মাস্টারকার্ড এবং মায়েস্ট্রো, অ্যাপল পে, পেপাল, গুগল পে, পেসেফকার্ড, স্ক্রিল, স্ক্রিল ওয়ান-ট্যাপ, পে বাই ব্যাংক অ্যাপ, নেটেলার, ইন্ট্রো পে, ফাস্ট ব্যাংক ট্রান্সফার এবং ব্যাংক চেক।
সর্বনিম্ন ডিপোজিট৫ ব্রিটিশ পাউন্ড
ফিনেই
মুদ্রাজিবিপি
পেআউট অপশনভিসা, মাস্টারকার্ড এবং মায়েস্ট্রো, ব্যাংক ওয়ার, পেপাল, স্ক্রিল, নেটেলার, পেসেফকার্ড এবং চেক।

টাকা ওঠানো খুবই সহজ। ভিসা, মাস্টারকার্ড এবং মায়েস্ট্রো, ব্যাংক ওয়ার, পেপাল, স্ক্রিল, নেটেলার, পেসেফকার্ড এবং চেকের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। সর্বনিম্ন ৫ পাউন্ড তুলতে পারবেন। তবে, ব্যাংক ওয়্যারে সর্বনিম্ন ২৫, নেটেলার ১০ এবং চেকের মাধ্যমে সর্বনিম্ন ১০০ পাউন্ড তোলা যাবে। ডেবিড বা ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে টাকা তুললে এক থেকে পাঁচ দিন সময় লাগবে। ই-ওয়ালেট সার্ভিসে প্রসেস হতে লাগবে ২৪ ঘন্টার কম। আর ব্যাংক আর চেকের মাধ্যমে দুই থেকে দশ এমনকি ৫ থেকে ২৮ দিন পর্যন্তও লাগতে পারে।

নিরাপত্তা ও বিধিবিধান

বেট৩৬৫ জিব্রাল্টার ও যুক্তরাজ্য সরকারের অনুমোদনপ্রাপ্ত। এজন্য সাইটটি আইনের মধ্যে থেকে পরিচালিত হতে হয়। বাজির অর্থ কোন অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার না হওয়া এবং রেসপন্সিবল গ্যাম্বলিংয়ের পক্ষে প্রচার চালায় সাইটটি। এজন্যই আপনি নিশ্চিন্তে এখানে বাজি ধরতে পারেন।

সদস্যদের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি ঠেকাতে ১২৮-বিট এসএসএল এনক্রিপশন প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাইটটি। ভার্চুয়াল গেমের ফলাফলের জন্য র‍্যান্ডম নাম্বার জেনারেটর ব্যবহার করে তারা। ফলে, ফলাফলের ক্ষেত্রে কোন অপারেটর বা সফটওয়ারের কারসাজী করার সুযোগ থাকে না।

কাস্টমার সাপোর্ট

গ্রাহকদের দিন রাত সেবা দিতে বিশাল কর্মী বাহিনী রয়েছে সাইটটির। গ্রাহকদের সেবা দিতে বেশ কয়েকটি ভাষায় দক্ষ জনশক্তি নিয়োগ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ইমেইল, টেলিফোন এবং লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে নিজের সমস্যা নিয়ে আলোচনা সুযোগ রয়েছে সাইটটিতে।

কাস্টমার সার্ভিসে কাজ করা কর্মীরা খুবই অমায়িক এবং সমস্যা সমাধানে পটু। মাত্র কয়েক মিনিটে আপনার যে কোন ধরণের সমস্যার সমাধান দিতে পারে তারা।

তাছাড়া সাইটটিতে বিশাল পরিমাণে প্রশ্ন-উত্তর (FAQ) সেকশন রয়েছে। সেখান থেকে যে কোন ধরণের সমস্যা সমাধানের উপায় খুঁজে পাবেন ব্যবহারকারীরা। কাস্টমার কেয়ারের ঝামেলা না নিতে চাইলে, নিজেই করতে পারেন নিজের সমস্যার সমাধান।

কিভাবে বেট৩৬৫ তে যোগ দেবেন?

আপনাকে কিছু ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে এখানে একাউন্ট খুলতে হবে। একটি ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড পছন্দ করবেন। চার ডিজিটের একটা কোড দেয়া হবে, যেটি জরুরি প্রয়োজনে সাইটের সাথে যোগাযোগ করতে ব্যবহার করতে হবে। এটি অন্য কোন সাইটে পাবেন না। খুবই ভালো একটা আইডিয়াম এটি।ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিঃসন্দেহে দারুণ একটা পদক্ষেপ।

একাউন্ট খোলার সময় যদি টাকা ডিপোজিট করেন, আপনাকে একটি বোনাস কোড দেয়া হবে। প্রোমোশন ট্যাব নামের একটি অপশন থেকে আপনি এই কোড পাবেন।

তবে অভিজ্ঞতা থেকে একটা সতর্কবার্তা আপনাদের জন্য। কোন বোনাস নেয়ার আগে অবশ্যই শর্তগুলো ভালোভাবে পড়ে নেবেন। বেট৩৬৫ এর বোনাস বা প্রোমোশন অফারগুলো খুবই ভালো এবং নিরাপদ। তাদের শর্তগুলোও যৌক্তিক। তবে সেসব জেনে রাখলে আপনার জন্যই ভালো। বোনাসের অর্থ ব্যবহারে কিছু বাঁধা নিষেধ থাকতে পারে।

সাইন আপ করতে কোন সমস্যা হলে, সাহায্য পাওয়ার রাস্তা অনেক। হেল্প সেকশনে গিয়ে প্রায় সব সমস্যার লিখিত সমধান পড়তে পারবেন। এতেও না হলে কাস্টমার সার্ভিসের সাথে ইমেইল, টেলিফোন বা লাইভ চ্যাটে যোগাযোগ করতে পারবেন।

আমি কেন বেট৩৬৫ কে পছন্দ করি?

দীর্ঘ সময় ধরে তারা অনলাইনে আছে। যুক্তরাজ্যের গ্যাম্বলিং কমিশনের অনুমোদনপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান বেট৩৬৫। একজন গ্রাহক হিসেবে যে সেবা পেয়েছি, তাতে বলা যায় অভিযোগ করার মতো কিছু নেই। সাইটটি ব্যবহার করাও সহজ। এখন পর্যন্ত কোন সমস্যায় পড়িনি। একই একাউন্টে স্পোর্টস বেটিং ও ক্যাসিনো খেলা যায়। চাইলে পোকার ও বিংগো খেলতে পারি। অনলাইন একাউন্টে টাকা যোগ করার অনেক অপশন। ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে যেমন টাকা ডিপোজিট হয়, তেমনি চাইলেই পেপাল বা নেটেলার ব্যবহার করতে পারি। ডিপোজিটের জন্য বাড়তি ফি নেই।

সর্বোনিম্ন ডিপোজিটের পরিমাণও অনেক কম। যতোটুকু চাই, তারচেয়ে বেশি ডিপোজিট করার কোন বাধ্যবাধকতা নেই। আর আপনি যদি চান প্রচুর পরিমাণ অর্থও এখানে ডিপোজিট করতে পারেন। জেতা টাকা ওঠানোতেও নেই কোন ঝামেলা।

প্রথম টাকা উঠানোর আগে আইডি কার্ডসহ কিছু কাগজপত্র দিতে হয়। কিন্তু এরপর আর কোন ঝামেলা নেই। টাকা উত্তোলনের রিকোয়েস্টের পর এক থেকে দুই দিনের মধ্যে একাউন্টে টাকা চলে আসে।

আমি আমার ডেস্কটপ, ট্যাবলেট বা স্মার্ট ফোনেই বাজি ধরতে পারি বা ক্যাসিনো খেলতে পারি।

ওয়েবসাইটের একটি মোবাইল ভার্সন আছে। পাশাপাশি ক্যাসিনো ও বেটিং উপযোগী একটি অ্যাপও আছে তাদের। নিয়মিতভাবে প্রোমোশন ও অফার দেয়া হয়।

এসব অফার জানিয়ে দেয় হয় মেইলের মাধ্যমেও। অন্য সাইটের মতো এদের অফারে গোপন কিছু থাকে না, যা আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাদের লাইভ চ্যাটে সবসময়ই সেবা মেলে, যা অন্য সাইটে চিন্তা করা কষ্টকর। এমনকি অন্য সাইটগুলোতে অনেক সাধারণ সহায়তাও পাওয়া যায় না। বেট৩৬৫ এর আকাশ্চুম্বি জনপ্রিয়তার এটা একটা বড় কারণ।

শেষ কথা

অনলাইন গ্যাম্বলিং সাইটের মধ্যে বেট৩৬৫ আমার পছন্দের শীর্ষে। কিছু জায়গায় অবশ্যই তাদের উন্নতি করার সুযোগ আছে। তবে এই সাইট থেকে অন্য সাইটগুলো অনেক বেশি পিছিয়ে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে বেট৩৬৫ প্রতিনিয়ত নিজেদের সেবাকে উন্নত করতে কাজ করে যাচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এবছর অনেক পরিবর্তন এসেছে সাইটটিতে। সামনের দিনগুলোতে আরো উন্নতি হবে- এটা বলাই যায়।

তবে বেট৩৬৫ আপনার জন্য উপযুক্ত কিনা, তা আপনাকেই সীদ্ধান্ত নিতে হবে। আমাকে যদি কোন বন্ধু প্রশ্ন করে, সেরা বাজি ধরার সাইট কোনটি? আমার উত্তরের শীর্ষে থাকবে বেট৩৬৫ এর নাম।